Increase your memory/স্মৃতিশক্তি বাড়িয়ে নিন

join with us on facebook

criticize memory
Spread the love

1কম ঘুমের অভ্যাস আমাদের স্মৃতিশক্তি কমানোর জন্য যথেষ্ট University of california এর বার্কের গবেষকেরা প্রমান করেছেন যে কম ঘুম আমাদের স্মৃতিশক্তি দুর্বল করে দেয় আর ঠিকমত না ঘুমানোর কারণে আপনি নানারকম মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হতে পারেন কোন কিছু ভুলে যাওয়ার জন্য মারাত্মক একটি রোগ আলঝাইমার আর যেটা হওয়ার প্রধান কারণ কম ঘুম আপনি কম ঘুমালে আপনার এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার অনেক সম্ভাবনা আছে এ রোগে আক্রান্ত রোগী কাছের  ও পরিচিত ব্যক্তি থেকে শুরু করে একটু আগে রাখা জিনিসের কথা ভুলে যায় সারা রাত্রে ঘুমানোর সময়  মস্তিষ্ক সাধারনত সাধারণত ক্ষতিকারক অভিশপ্ত কোষগুলো নষ্ট করে দেয় যদি কেউ নিয়মিত পর্যাপ্ত না ঘুমায় তাহলে এই ক্ষতিকর কোষ গুলোকে হতে পারে আপনার জন্য মারাত্মক রোগের কারণ সুতরাং আপনি কোন কিছু মনে করতে পারেন না বা মনে রাখতে পারেন না তার সবচেয়ে বড় একটি কারণ হতে পারে নিয়মিত কম ঘুমানোএকজন সুস্থ মানুষের জন্য প্রতিদিন 6 থেকে 8 ঘণ্টা ঘুমানোর প্রয়োজন মনে রাখবেন এর থেকে কম ঘুমানো মানে নিজে নিজেই নিজের ক্ষতি করছেন

হতাশা স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ আপনার দীর্ঘদিনের হতাশা আরে আপনি হয়তবা জানেন না আপনার মেজাজ খিটখিটে হয়ে যাওয়ার জন্য এটাই যথেষ্ট  অল্পতেই রাগ লাগবে কার কথা উপদেশ মনে হবে আপনার সফল না হওয়ার পিছেও এটা দায়ী আপনি হয়ত জানেন না এই হতাশায় আপনাকে আপনার লক্ষ্য থেকে দূরে ছেড়ে রাখছেi  হতাশা দূরে রেখে সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য প্রত্যয় গ্রহণ করুন আপনার এই সাহসী আপনাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে আর এ হতাশা আপনার স্মৃতিশক্তি আস্তে আস্তে কমিয়ে দিবে  তো আজকে হতাশা থেকে বেরিয়ে আসেন নাহলে আপনি স্থায়ীভাবে মানুষের রোগীহয়ে যেতে পারেন হতাশা প্রত্যেক মানুষের জীবনেই আসে আপনি যতই কে প্রশ্রয় দিবেন এটি আপনাকে দিন দিন মানসিক রোগী  বানিয়ে দিবে তাই যত দ্রুত সম্ভব হতাশা থেকে নিজের জীবনকে বের করে আনুন বিশ্বাস করুন আগামীতে আপনি অনেক বড় কিছু করতে পারবেন আপনি সফল হবেনই যদি আপনার ভিতর বিশ্বাস থাকে পুরনো দিনের হতাশার কথা ভুলে নতুন করে সবকিছু শুরু করে দিন পুরনো দিনের ব্যর্থতা নয় সফলতার কথা চিন্তা করুন  এবং ভবিষ্যতে আপনি কি করবেন সেই পরিকল্পনামাফিক কাজ শুরু করে দিন সফল আপনি হবেন কারণ প্রত্যেকটা মানুষের ভেতরে সফল হবার ক্ষমতা আছে শুধু মনটাকে শক্ত করে কাজে লেগে পড়ুন

পানিশূন্যতা আমাদের শরীরের প্রায় 80/85 ভাগ পানি আরে পানিশূন্যতা ও হতে পারে আপনার ভুলে যাওয়ার কারণ

শরীরে পানি কম থাকলে শরীর তার স্বাভাবিক ক্রিয়াকলাপে  ব্যাহত ঘটে মস্তিষ্কে যদি সামান্য পরিমান ও পানি কম থাকে তাহলে আপনি নানারকম সমস্যায় ভুগতে পারেন এর ফলে আপনার কাজে মনোযোগ কমে যেতে পারে অথবা ঘুমিয়ে ব্যাহত হতে পারে আপনার অনিদ্রা রোগ হতে পারে আরে দুটো একসাথে হলে আপনি খুব দ্রুত সবকিছু ভুলে যাবেন এমনকি এর ফলে আপনার স্নায়বিক বৈকল্য দেখা দিতে পারে

পানিশূন্যতা রোধ এর জন্য নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন রোদ এবং গরম এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন এবং দিনে অন্তত চার গ্লাস পানি  পান করুন তাছাড়া ফলের জুস পান করতে পারেন

মিষ্টি জাতীয় খাবার আপনি হয়তো বা শুনে অবাক হয়ে যাবেন মিষ্টিজাতীয় খাবার ও আমাদের স্মৃতি শক্তির জন্য ক্ষতিকর আপনি যদি দৈনন্দিন জীবনে আপনার খাবারের তালিকায় অতিরিক্ত মিষ্টি জাতীয় খাবার  রাখেন তাহলে আপনার স্মৃতিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে মিষ্টি জাতীয় খাবার আমাদের ব্রেনের ক্রিয়া ক্ষমতা কমিয়ে দেয় কোন কিছু শেখার সামর্থ্য কেও কমিয়ে দেয় কাজে মনোযোগ কমে স্মৃতিশক্তি দুর্বল করে এর কারণ অতিরিক্ত মিষ্টি মানুষের ব্রেনের  neural Connection নষ্ট করে দেয় তাই বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে দেখেছেন যে soft drinks চাটনি এগুলো শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক তবে যেসব খাবারে অন্যান্য পুষ্টিগুণ আছে যেমন মাছ বাদাম মাছের তেল শরীরের জন্য অনেক উপকারী শরীর বিকলাঙ্গতা রোধ করে তাই স্মৃতিশক্তি ও বাড়াতে আজও আপনার খাদ্যের তালিকায় বড়োধরনের একটি পরিবর্তন আনুন এবং মিষ্টিজাত খাবার যত কম খাওয়া যায় ততই আপনার জন্য ভালো

বেশি বেশি বই পড়া আপনার স্মৃতি শক্তিকে বাড়িয়ে তুলতে অনেক বড় ভূমিকা রাখে বিভিন্ন বিজ্ঞানীরা অনেক গবেষণায় এটা প্রমাণ পেয়েছেন যে যারা বেশি বেশি বই পড়ে এবং নিয়মিত বই পড়ে তাদের স্মৃতিশক্তি অন্যদের থেকে একটু বেশি যারা অনেক পুরনো কিছু মনে করতে পারে কারণ নিয়মিত বই পড়ার অভ্যাস আপনার স্মৃতিশক্তিকে সবসময় জাগ্রত রাখে এবং নতুন নতুন বিষয় গুলো জানতে এবং বুঝতে সহায়তা করে এমনকি মস্তিষ্কের আগে যে সমস্ত কোষগুলো ব্যবহার হয়নি নিয়মিত পড়াশোনা আপনার সেই কোষগুলোকেও জাগ্রত করে দেয় করার সময় আপনার মস্তিষ্ক  অনেক সচল থাকে আর এজন্য মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল ও স্বাভাবিক থাকে এর ফলে আপনার স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায় তাই আমাদের বেশি বেশি বই পড়া উচিত তবে বেশি বেশি টিভি দেখা এবং মোবাইলে বা কম্পিউটারে গেমস খেলা আমাদের শরীর ও মস্তিষ্কের ক্ষতির কারণ হতে পারে 

ছবি আঁকা বন্ধুরা আমি এখন যেটি বলব আপনাদের হয়ত বা অনেকের বিশ্বাস করতে কষ্ট হবে  হয়ত ভাববেন এটা কিভাবে সম্ভব আমি আজ এমনই একটি অসম্ভব কে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করছি যেটা আসলে অসম্ভব নয় এটা সত্যই ঘটে এটা হচ্ছে ছবি আঁকা ছবি আঁকার অভ্যাস আপনার ব্রেনকে দারুণভাবে প্রভাবিত করে আপনি যখন ছবি আঁকেন তখন আপনার  ব্রেন নানা রকম নতুন নতুন চিন্তা ভাবনা করতে থাকে আর যার কারনে আপনার মস্তিষ্কের কোষগুলো অনেক বেশি একটিভ থাকে আপনার মরে যাওয়া কোষগুলো আবার পুনরুজ্জীবিত হয় আপনি ভাবলে অবাক হয়ে যাবেন ছবি আঁকার অভ্যাস আপনার মস্তিষ্কের মরে যাওয়া কোষগুলোকেও উজ্জীবিত করতে সামর্থ্য রাখে তবে যাদের বয়স একটু বেশি তাদের জন্য এই কৌশলটি বেশি ফলদায়ক সুতরাং আমাদের উচিত আজি  ছবি আঁকার অভ্যাস গড়ে তোলা গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে 65 থেকে 70 বয়সের মানুষের ব্রেইনের ক্ষমতা অনেক কমে যায় কিন্তু এই বয়সের মানুষ যদি ছবি আঁকার শুরু করে বা ছবি আঁকার অভ্যাস করে তাহলে তাদের স্মৃতিশক্তি অনেকগুনে বাড়ানো সম্ভব

Rating: 5.0/5. From 1 vote.
Please wait...

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*